ন্যাশনাল জিওগ্রাফি’র ফটো কনটেস্টে পৃথিবীতে প্রথম হল চট্টগ্রাম ডকইয়ার্ডের ছবি

বাংলাদেশের জাহাজ ভাঙ্গা শিল্প নিয়ে অনেক রকম কথাই প্রচলিত। সেগুলির কথা এখানে বাদ, ন্যাশনাল জিওগ্রাফি'র ২০১০ সালের ফটো কনটেস্টে প্রথম হয়েছে এই ডকইয়ার্ডের একটা ছবি।

ফটো কনটেস্টটি আয়োজন করা হয়েছিল সারা পৃথিবীর সব ফটোগ্রাফারের সেরা ফটোটি নির্বাচন করার জন্যে। অসংখ্য মানুষ তাদের ছবি পাঠিয়েছেন (বেশিরভাগ ছবিই নিঃশ্বাস আটকে আসার মত, এত্ত সুন্দর)........peoples-nature-places ক্যাটাগরীতে হওয়া এই প্রতিযোগিতার নির্বাচিত ছবিগুলি আপনারা দেখতে পারেন এই লিংকে: nationalgeographic.com/photo-contest/2010/entries/gallery

নির্বাচিত ছবিটি তুলেছেন Jana Asenbrennerova এবং বিচারকরা এই ছবির পারস্পেকটিভটা সবচেয়ে বেশী পছন্দ করেছেন। একটা ছবি হওয়া উচিত একটা বইয়ের পাতার মত, যেটাকে ইচ্ছামত পড়া যাবে এবং কনটেক্সট চিন্তা করা যাবে (অ্যাবস্ট্রাকট ছবি'র কথা বাদ, ন্যাচারাল ফটো'র কথা বলছি).... সেই হিসেবে এই ছবিটি আসলেই অসাধারাণ..... ছবিটি সম্পর্কে ফটোগ্রাফার এবং বিচারকদের মন্তব্য:

Jana Asenbrennerova (photographer): Despite its unsafe work practices and pollution, the city is "one of the biggest industry and job opportunities for many Bangladeshis,"

Joel Sartore (judge): "It's basically an industrial landscape photo, but done in an interesting way, with humans for scale, that we couldn't stop looking at it," said , a freelance photographer.

Stephen Alvarez (judge): "I've seen a lot of shipbreaking photos, but never seen this one before, You know at once where you are and what is going on."

Judge Sadie Quarrier (judge): "how the photographer decided to shoot this quite tight so we only see portions of the ship. This allows the eye to wander around and inspect all of the various pipes, parts, and people."

ছবিটা এখানে না দেই, ন্যাশনাল জিওগ্রাফির সাইটেই দেখুন: http://ngm.nationalgeographic.com/ngm/photo-contest/

অরিজিনাল লিংক: http://nationalgeographic.com/photo-contest/2010/places-winners/

ফটোগ্রাফারকে শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *